বিকাশ একাউন্ট কার নামে আছে তা জানুন খুব সহজে

বিকাশ একাউন্ট কার নামে আছে তা জানুন খুব সহজে true line bd


Hello বন্ধুরা, আপনারা কেমন আছেন। আসা করি সবাই আল্লাহর রহমতে ভালো আছেন। আপনরা অনেক ভাইয়েরা আমাকে মেসেজে করে ও ইমেইল করে জানতে চেয়েছেন যে বিকাশ একাউন্ট কার নামে আছে তা কিভাবে দেখতে পারবেন। আমার অনেক ভাইয়েরা আছে যে তারা রেফারেল এর মাধ্যমে বিকাশ একাউন্ট খুলে টাকা ইনকাম করেছে। 

কিন্তু পরে প্রয়োজন হওয়াতে তারা কোন এনআইডি দিয়ে বিকাশ একাউন্ট খুলেছে ও বিকাশের পিন কি দিয়েছে তা ভুলে গিয়েছে। তাই আজ আমি আপনাদের  বিকাশ একাউন্ট কার নামে আছে, বিকাশ কোন আইডি দিয়ে খোলা এবং ৫টি উপায়ে বিকাশ একাউন্ট কার নামে আছে তা কিভাবে দেখবেন সেই সম্পর্কে বিস্তারিতভাবে ও প্র্যাটিক্যাল আকারে দেখানোর চেষ্টা করবো। তো চলুন শুরু করা যাক আরো এক নতুন ইন্টারেস্টিং টপিক্স। 


বিকাশ একাউন্ট কার নামে আছে তা জানুন খুব সহজে

বিকাশ হলো ব্র্যাক ব্যাংক এর একটি মোবাইল ব্যাংকিং সার্ভিস। আমার খুব সহজে কোন ঝামেলা ছাড়াই এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় টাকা পাঠাতে পারি। তাই বর্তমান সময়ে একটা বিকাশ একাউন্ট আমাদের জন্য কতটুকু গুরুত্বপূর্ণ। কিন্তু অনেকে তাদের নানা প্রয়োজনে বিকাশ একাউন্ট কার নামে আছে তা জনতে চায় ও বিকাশ কোন আইডি দিয়ে খোলা তা সম্পর্কে জানতে চায়। তাই আপনাদের কথা চিন্তা করে আমি ৫টি উপায়ের বিকাশ একাউন্ট কার নামে আছেতার এনআইডি কার্ডের তথ্যসহ কিভাবে বের করবেন সবকিছু খুব সহজে নিচে দিয়ে দিয়েছি। 

৫টি উপায়ে বিকাশ একাউন্ট কার নামে আছে তা জানুন খুব সহজে

আমি অনলাইনে রিসার্চ করে ও বিকাশের কাস্টমার কেয়ারের সাথে কথা বলে আপনাদের জন্য ৫টি উপায়ে বিকাশ একাউন্ট কার নামে আছে তা জানুন খুব সহজে পয়েন্ট আকারে দেখানোর চেষ্টা করেছি।      

• ইসলামি ব্যাংক এর সেলফিন অ্যাপ ব্যবহার করে

• ব্যাংক এশিয়ার Smart app ব্যবহার করে

• ইন্টারনেট ব্যাংকিং ব্যবহার করে

• বিকাশ কাস্টমার কেয়ার সার্ভিস ব্যবহার করে

• বিকাশ লাইভ চ্যাটের মাধ্যম ব্যবহার করে

আপনার যে মাধ্যমেটা ভালো লাগে আপনি সেটা দিয়ে বিকাশের একাউন্ট কার নামে আছে তা দেখতে পারবেন।

গুগল নিউজে আমাদের সাইটি ফলো করতে এখানে ক্লিক করুন

১.সেলফিন অ্যাপ ব্যবহার করে পরিচয় বের করা নিয়ম

সেলফিন হলো আমাদের লিস্টের সর্বপ্রথম উপায়। সেলফিন হলো ইসলামি ব্যাংক এর একটা মোবাইল ব্যাংকিং অ্যাপস। যার মাধ্যমে আমরা ইসলামি ব্যাংক এর ইন্টারনেট ব্যাংকিং এর নানা সুবিধা পেয়ে থাকি। একটা মজার বিষয় হলো যে কোন ব্যাংক একাউন্ট ছাড়াই সেলফিন একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করতে পারবেন। তাই খুব সহজে সেলফিন অ্যাপ দিয়ে বিকাশ একাউন্ট কার নামে আছে দেখার নিয়ম নিচে Step আকারে দেখানো হলোঃ

Step-1: প্রথমে আপনি গুগল প্লে স্টোর থেকে সেলফিন অ্যাপসটি ইন্সটল করবেন।    



Step-2: Cellfin app এই রেজিষ্ট্রেশন করুন। তারপর এই রকম ইন্টারফেস দেখতে পারবেন। তরপর " Fund Transfer " অপশেন দেখতে পাবেন তাতে ক্লিক করুন৷    


Step-3: তারপর বিকাশ অপশনে ক্লিক করুন ৷   


Step-4: আপনি যে বিকাশ নাম্বারটির এনআইডি কার্ডের নাম বের করতে চাচ্ছেন সেই বিকাশ একাউন্ট এর নাম্বার দিয়ে Next বাটনে ক্লিক করুন। 


Step-5: তারপর আপনি এই রকম একটা ইন্টারফেইস দেখতে পাবেন। এরপর বিকাশ নাম্বারটি বসালে আপনি দেখতে পারবেন যে কার নামে আছে বিকাশ একাউন্টি।


আসা করি উপরের এই ৫টি ধাপ ফলো করে আপনি খুব সহজে দেখে নিয়েছেন যে কিভাবে বিকাশ একাউন্ট কার নামে আছে।

আপনার জন্যঃ


সেরা ৫টি সবচেয়ে কম দামে বাটন মোবাইল এর দাম ২০২৩

মোবাইল ট্রেন টিকেট বুকিং করুন খুব সহজে

Facebook Profile Monetizetion থেকে কীভাবে টাকা আয় করবেন 

নগদ একাউন্ট থেকে যেকোন ব্যাংকে টাকা ট্রান্সফার করুন খুব সহজে

সরকারি অর্থ 2023 টেক সাইট বাংলা


২.ব্যাংক এশিয়া Smart app ব্যবহার করে বিকাশ একাউন্ট কার নামে আছে দেখার নিয়ম

আমাদের লিস্টের দ্বিতীয় উপায়টি হলো ব্যাংক এশিয়ার Smart app এর মাধ্যমে আপনি বিকাশ কার নামে খোলা তা জানতে পারবেন। এটা শুধু যাদের ব্যাংক এশিয়ার একাউন্ট আছে তারা এই নিয়মটা ফলো করতে হবে। কারন ব্যাংক এশিয়ার Smart apps শুধু যাদের একাউন্ট আছে তারা ব্যবহার করতে পারবে। আর যাদের একাউন্ট নেই তারা এই অ্যাপস এর মাধ্যমে একটা একাউন্ট খুলে নিতে হবে। তো নিচের ধাপগুলো ফলো করুন এবং বিকাশ কার নামে খোলা তা দেখুনঃ

Step-1:  আপনি গুগল প্লে স্টোর থেকে Bank asia Smart app লিখে সার্চ করলে আপনি এই অ্যাপটি পেয়ে যাবেন৷ অ্যাপটি ইন্সটল করার পর ওপেন করুন এবং 

" Wallet Transfer "  অপশনে ক্লিক করুন ৷         


Step-2: এরপর আপনি ওয়ালেট এর টাইপ সিলেক্ট করুন এবং যে বিকাশ নাম্বার এর একাউন্ট হোল্ডার এর নাম দেখতে চাচ্ছেন তার নাম্বারটি দেন তাহলে আপনি Wallet title এই তার বিকাশ একাউন্ট কার নামে আছে তা জানতে পারবেন।         

 

৩. ইন্টারনেট ব্যাংকিং ব্যবহার করে বিকাশ একাউন্ট কার নামে আছে তা জানতে পারবেন 

আমরা যে কোন ব্যাংক এর ইন্টারনেট ব্যাংকিং সুবিধাটি ব্যবহার করে খুব সহজে জেনে নিতে পারবো যে বিকাশ নাম্বারটি কার এনআইডি দিয়ে ওপেন করা হয়েছে। এটা করার জন্য আপনার যে কোন ব্যাংক যেমন ইসলামি ব্যাংক, ব্যাংক এশিয়া, ব্র্যাক ব্যাংক, ডাচ্ বাংলা ব্যাংক গুলোতে একটি যে কোন ধরনের একাউন্ট থাকা লাগবে। তারপর একাউন্ট ওপেন হয়ে গেলে আপনি ব্যাংকের কর্মরত ব্যাক্তিকে বলবেন আপনাকে ইন্টারনেট ব্যাংকিং এর ব্যবহার করার অনুমতি দেওয়ার জন্য। 

ব্যাংক কর্মকর্তা আপনার ইন্টারনেট ব্যাংকিং ব্যবহার করার জন্য ৩-১৬ ঘন্টার মধ্যে আপনার যে মেইল একাউন্ট আছে সেখানে একটা পিন রিসেট এর মেইল করবে এবং আপনি পিন রিসেট করে আপনার যে ব্যাংকের ইন্টারনেট ব্যাংকিং অ্যাপস আছে সেখানে আপনি লগইন করবেন এবং খুব সহজে আপনি ইন্টারনেট ব্যাংকিং ব্যবহার করে বিকাশ একাউন্ট কার নামে আছে তা জানতে পারবেন।         

So, আসা করি আপনারা উপরের নিয়মটা ফলো করে ইন্টারনেট ব্যাংকিং ব্যবহার করে বিকাশ একাউন্ট কার নামে আছে তা জানতে পেরেছেন। কোন কিছু বুঝতে না পারলে আমাকে নিচের কমেন্ট করে জানবেন ৷        

৪.বিকাশ কাস্টমার কেয়ার সার্ভিস ব্যবহার করে

আপনি বিকাশের কাস্টমার কেয়ারে গিয়ে ও জনতে পারবেন যে বিকাশ নাম্বারটি কার নামে ওপেন করা হয়েছে। আমি অনলাইন ও তাদের কাস্টমার কেয়ারের কর্মকর্তাদের সাথে কথা বলে কিছু তথ্য জানতে পেরেছি যদি আপনি এরকম কোন তথ্য তাদের কাছ থেকে জানতে চান তাহলে আপনাকে কিছু কাগজপত্র তাদের দেখতে হবে ভেরিফিকেশন করার জন্য যে আপনি সিম বা একাউন্ট এর আসল মালিক কি না।         

এটা করা জন্য আপনাকে কিছু কাগজ পএের প্রয়োজন হবে। আপনার সম্ভাব্য এনআইডি কার্ড এর ফটোকপি ও আপনার যে নাম্বারে বিকাশ আছে সে নাম্বারের মালিকনার একটা ফটো কপি ও আপনার পাসপোর্ট সাইজের দুইকপি কালার ছবি। ব্যাস এই কাগজপএ গুলো নিয়ে গেলে তারা আপনাকে বলে দিবে যে বিকাশটি কার আইডি দিয়ে খোলা হয়েছে।       

৫.বিকাশ লাইভ চ্যাটের মাধ্যম ব্যবহার করে

আমাদের সর্বশেষ এবং খুব সহজে বিকাশ একাউন্ট কার নামে খোলা হয়েছে তা জানতে পারবেন বিকাশের নতুন একটা ফিচার এর মাধ্যমে তা হলো বিকাশ লাইভ চ্যাট। যার মাধ্যমে আপনি ঘরে বসেই বিকাশের কাস্টমার কেয়ারের প্রতিনিধির সাথে লাইভ চ্যাট করতে পারবেন। এটা করা জন্য আপনাকে বিকাশের ওয়েবসাইট বা অ্যাপস এই লগইন করতে হবে। 


তারপর বিকাশের মেনু অপশেন থেকে সাপোর্ট অপশনে ক্লিক করুন। তারপর আপনি দুইটি মাধ্যমে তাদের সাথে যোগাযোগ করতে পারেন। আপনি লাইভ চ্যাট ও ইমেইল এর মাধ্যমে তাদের সাথে কন্টাক্ট করতে পারবেন। লাইভ চ্যাট ওপন করে কিছুক্ষন অপেক্ষা করলে একজন প্রতিনিধি আপনার সাথে চ্যাট শুরু করবে। আপনি তাকে আপনার সমস্যাটি খুলে বলবেন আসা করি খুব অল্প সময়ের আপনার কাজটি হয়ে যাবে।


বিকাশ একাউন্ট কার নামে আছে দেখতে না পারলে যা করবেন 

আসা করি ইতিমধ্যে আপনার বিকাশ কার নামে খোলা তা জানতে পেরে গেছেন। যদি কোন কারনে আপনি তা না জানতে পারেন তাহলে আমার সাথে কন্টাক্ট করলে আমি আপনাকে বলে দিব যে বিকাশ কার আইডি দিয়ে খোলা হয়েছে। এটা করার জন্য আপনাকে নিচের দেওয়া লিংকটি ওপেন করতে হবে। ওপেন করলে আপনি আমার টেলিগ্রাম এই চলে যাবেন এবং সেখানে আপনার সমস্যা আমাকে বললে আমি অবশ্যই সমাধান করার চেষ্টা করবো। 

আমাদের টেলিগ্রাম চ্যানেল Join করতে এখানে ক্লিক করুন   

আমার শেষ কথা 

আসা করি আপনারা আজকের আর্টিকেলের মাধ্যমে বিকাশ একাউন্ট কার নামে আছে তা জানুন খুব সহজে তা জানতে পেরেছেন এবং উপরের দেওয়া ৫টি উপায়ের নিয়মগুলো আপনি ফলো করে বিকাশ একাউন্ট কার নামে ওপেন করা তা সম্পর্কে বিস্তারিতভাবে জানতে পেরেছেন। আমি আমার সর্বচ্চো রিসার্চ এই আর্টিকেলে উপস্থাপন করার চেষ্টা করেছি। 

So, আপনি যদি কোন জায়গায় বুঝতে না পারেন তাহলে আমাকে নিচের কমেন্ট করে জানবেন আমি অবশ্যই আপনার কমেন্ট এর উওর দেওয়ার চেষ্টা করবো। তো দেখা হবে নতুন কোন ইন্টারেস্টিং টপিক্স নিয়ে সে পর্যন্ত সবাই ভালো থাকবেন আল্লাহ হাফেজ।                                

বিকাশ নাম্বার দিয়ে পরিচয় বের করার উপায় কি?

আপনি ইসলামি ব্যাংক এর সেলফিন অ্যাপ ব্যবহার করে বা উপরের ৫টি উপায় ব্যবহার করে বিকাশ একাউন্ট কার নামে আছে তা জানতে পারবেন।                

বিকাশ একাউন্ট কোন ভোটার আইডি দিয়ে খোলা তা দেখবো কিভাবে?

আপনি ব্যাংক এশিয়ার Smart app ব্যবহার করে আপনি বিকাশ একাউন্ট কার নামে আছে তা জানতে পারবেন। তার নাম বের করতে পারবেন। কিন্তু তার এনআইডি কার্ড নাম্বার বের করতে পারবেন না। কারন বিকাশ তাদের গ্রাহকদের তথ্য কাউকে শেয়ার করে না। যদি আপনি জানতে চান তাহলে বিকাশের কাস্টমার কেয়ারে গিয়ে তাদের সাথে কথা বললে জানতে পারবেন।

একটি আইডি কার্ড দিয়ে কয়টি বিকাশ একাউন্ট খোলা যায়?

আপনি এনআইডি কার্ড দিয়ে একটা একাউন্ট এই খুলতে পারবেন ৷ এটা সত্য কিন্তু আপনার যদি পাসপোর্ট থাকে তাহলে আপনি দুইটা বিকাশ একাউন্ট খুলতে পারবেন ৷ একটা এনআইডি দিয়ে ও অন্যটা পাসপোর্ট দিয়ে খুলতে পারবেন খুব সহজে।          

বিকাশ একাউন্ট লক হয়ে গেলে কি করবো?  

আমরা সাধারণ ভুল পিন দেওয়ার কারনে আমাদের বিকাশ একাউন্টি কল হয়ে যায়। লক খোলার জন্য আপনাকে বিকাশের প্রতিনিধির সাথে লাইভ চ্যাট অথবা তাদের কাস্টমার কেয়ারে কল দিলে তারা আপনার কিছু তথ্য যাচাই করা পর আপনার একাউন্টি পুনরায় চালু করে দিবে।  

Shahadat Hossain

সাহাদাত হোসেন একজন প্রযুক্তি ব্লগার ও ওয়েব ডিজাইনার। তিনি দীর্ঘদিন ধরে লেখালেখি ও ফ্রিলান্সার হিসাবে যুক্ত আছেন। সেই ভালো লাগা থেকে তিনি "টুরু লাইন বিডি" ব্লগ সাইটি প্রতিষ্ঠা করেছেন। তিনি ব্লগিং সম্পর্কে খুব উৎসাহী তাই আপনাদের জন্য প্রযুক্তি ও বিজ্ঞান সম্পর্কে সবসময় লিখে যাবে।

1 Comments

  1. ধন্যবাদ এত সুন্দর করে বুঝানোর জন্য

    ReplyDelete
Previous Post Next Post